শেষ হলো সিটিও টেক সামিট: ভয় নয় সিকিউরিটি নিয়ে ক্যারিয়ার গড়

শেষ হলো সিটিও টেক সামিট: ভয় নয় সিকিউরিটি নিয়ে ক্যারিয়ার গড়

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদক, ম্যাঙ্গোটিভি: সাইবার জগত, ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেম, ই-গভার্নমেন্ট নিয়ে বিভিন্ন সভা, সেমিনার ও দেশের প্রযুক্তি লিডারদের উপস্থিতে শেষ হয়েছে দুদিনের ‘সিটিও টেক সামিট ২০১৮’। শুক্রবার ১১ মে বিকালে ধানমন্ডি ক্লাবে উদ্বোধনীর মধ্যে দিয়ে শুরু হয়েছিলো দুই দিনের এই টেক সামিটটি।

শনিবার (১২ মে) ড্যাফোডিল মিলানায়তনে এই টেক সামিটের ক্লোজিং সেশনের আয়োজন করা হয়।

সেমিনারে ই-গভর্নমেন্ট বিষয়ক এক সেমিনারে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের আইটি ম্যানেজার মো. আরফে এলাহি মানিক বলেন, প্রযুক্তি থ্রেট নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। প্রযুক্তি কিন্তু আর্শিবাদও বটে। ভয়ের পরিবর্তে সিকিউরিটি নিয়ে ক্যারিয়ার গড়তে হবে কারণ এই সাইবার ওয়ার্ল্ডের সিকিউরিটি নিয়ে পৃথিবীব্যাপি বিশাল বাজার রয়েছে। আর এই খাতে বিশাল চাকরি বাজারও রয়েছে।ই-গভার্ননেন্স নিয়ে সরকারের কি পরিকল্পনা সম্পর্কে তিনি বলেন, সরকার প্রযুক্তি’রপ্রকৃত সেবা যাতে জনগণ পায় সে লক্ষ্যে কাজ করছে। শুধু এটুকু বলতে পারি ভবিষ্যতে জনগণ সব সেবা এক জায়গা থেকে পাবে। তার প্রকৃত পরিচয় হবে তার ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার।

অন্য এক সাইবার বিশেষজ্ঞ ও সিটিও ফোরামের কো-ফাউন্ডার আজিম ইউ হক তাঁর সেমিনারে বলেন, সাইবার ওয়ার্ল্ড নিয়ে সবাইকে সচেতন হতে হবে। যত বেশী সচেতন হবো ততই এখানে আমরা নিরাপদ থাকবো। আমরা সিকিউরড সাইট ছাড়া ব্রাউজ করবো না। তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত আমরা ইন্টারনেটে ফ্রি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে যা দেখি এবং ভিডিও দেখার জন্য ক্লিক করি। যার কারণে আপানার কম্পিউটারে কিভাবে তথ্য হ্যাকারদের কাছে চলে যেতে পারে। এদিকে আমাদের সচেতন হতে হবে।

ড্যাফোডিল গ্রুপের বোর্ড অব ট্রাস্টি চেয়ারম্যান সবুর খান বলেন, সিটিও ফোরামের এ ধরণের আয়োজনের সাথে থাকতে পেরে আমরা খুবই খুশি। এবং আনন্দের সাথে বলতে চাই প্রযুক্তির এই উন্নয়নে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কিভাবে এর সাথে আরও যুক্ত করা যায় তা নিয়েও আলোচনা করবো। এবং সব ধরনের সহযোগিতায় ড্যাফোডিল সিটিও’র সাথে থাকবে।সমাপনি বক্তব্যে তপন কান্তি সরকার বলেন, এ সমস্ত টেক সামিটে দেশের প্রযুক্তি প্রেমিদের এতো সাড়া পাওয়া যাবে আমরা বুঝতে পারিনি। ভবিষ্যতে আরও বড় আকারে টেক সামিটের আয়োজন করা হবে। এবং আগামী বছর থেকে ‘আইসিটি এক্সিলেন্সি অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হবে।

সেমিনারে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যারয়ের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. তৌহিদ ভূইয়া, মাস্টার কার্ডের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামালসহ বিভিন্ন সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত ছিলেন।

ম্যাঙ্গোটিভি/১২মে/রোহান

Comments are closed.